Bengali jokes - HindiJokes.Mobi
Jyotirmoy Biswas: 1 year ago

একটি ছেলে প্রেম শুরু করে কীভাবে এবং একটি মেয়ে প্রেম শেষ করে কীভাবে যানেন?
একটি ছেলে প্রেম শুরু করেঃ আজকে থেকে আমরা দুজনে একে ওপরের বন্ধু হতে পাড়ী।
একটি মেয়ে প্রেম শেষ করেঃ আজ থেকে আমরা একে ওপরের বন্ধু।
Jyotirmoy Biswas: 1 year ago

এক বুড়া বারে গিয়ে মদ গিলতো। আর
মাতাল হয়ে তার গায়ের চাদর
হারিয়ে আসতো।তাই তার বউ
বুড়াকে খুব ঝাড়তো।
একদিন বুড়া ঠিক
করলো আজকে বারে যাওয়ার
আগে গায়ের সাথে চাদরটা খুব টাইট
করে গিট্টু লাগায় নিবে….তাহলে আর
হারাবে না।
রাতের বেলা হেবি করে মাল টাল
খেয়ে বাসায় বুড়া ফিরলো।।
বুড়িকে ঢলতে ঢলতে বলল,
“দেখেছো..আজকে গায়ের চাদর
ঠিকঠাক আছে….
বুড়ি বলল,”তা ঠিক বলেছো,
..
.
,
.
.
.
.
.
.
.
.
.
.
.
.
.
.
..
.
..
কিন্তু তোমার লুঙ্গি কই???”
Jyotirmoy Biswas: 1 year ago

মাস্টর স্কূল এ পড়াছে কাজী নজরুল এর কবিতা !
মাস্টর : তাপস বলো তো আমদের বাংলায় কেন এত আগুন জলছে ?
তাপস : সার্ আসলে বর্তমানে গেসের দাম ৪টাকা কমছে বলে !
মাস্টর : ভুল ৤ হইছে !
মাস্টর : বলো তো তাপস কবি কেন গান গাইতে পারছেন ণা ?
তাপস : আসলে সার্ কবির গিটারের তাঁর ছিড়া গেছিল তাই কবি গান গাইতে পারছিল না ! !
মাস্টর : না ছেলে বড় হইয়া রক স্টার হইবে ! !
Jyotirmoy Biswas: 1 year ago

মেয়ে — এইসব কি ?
ছেলে — কোন সব ?
মেয়ে — In a relationship দিলা কেন ?
ছেলে — প্রেম করছি তাই ।
মেয়ে — মানে কি ?
ছেলে — বাংলা কথা বুঝো না ?
মেয়ে — বুঝি তো ।
ছেলে — আমি তো বাংলাতেই
বলেছি ।
মেয়ে — প্রেম করছো মানে কি ?
ছেলে — প্রেম করছি মানে প্রেম
করছি ।
মেয়ে — আজব ।
ছেলে — আজব এর কি পেলে ?
আমি প্রেম
করতে পারি না নাকি ?
মেয়ে — কার সাথে ?
ছেলে — তা তো বলবো না ।
মেয়ে — কেন ?
ছেলে — তুমি আমার কে হও
যে তোমাকে বলতে হবে ?
মেয়ে — আমি তোমার কেও হই না ?
ছেলে — না ।
মেয়ে — প্লিজ
ফাইজলামি করো না ।
ছেলে — ফাইজলামি করবো কেন ?
মেয়ে — সত্যিই প্রেম করছো ?
( কান্না কান্না ভাব)
ছেলে — হুম সত্যি ।
মেয়ে — এইবার
কেঁদে দিবো কিন্তু ।
ছেলে — কেন ?
মেয়ে — ভালবাসি ।
ছেলে — কাকে ?
মেয়ে — উঁহু । তোমাকে ।
ছেলে — কেন ?
মেয়ে — জানিনা ।
ছেলে — কিন্তু এখন তো আর কিছু
করার নেই

মেয়ে — সত্যিই ভালবাসি ।
ছেলে — এতো দিন বলো নাই কেন ?
মেয়ে — সাহস হয় নি ।
ছেলে — এখন
সাহসটা কোথা থেকে আসলো ?
মেয়ে — এখন তো তুমি অন্যের।
ছেলে — হুম ।
মেয়ে — কি হুম ..?
ছেলে — ভালবাসি ।
মেয়ে — কাকে ?
ছেলে — শুধু তোমাকে ।
মেয়ে — আর ঐ মেয়েটা ?
ছেলে — কোন মেয়েটা ?
মেয়ে — তোমার প্রেমিকা ।
ছেলে — ধুর ,, বোকা মেয়ে ।
মেয়ে — মানে ?
ছেলে — ওটা মিথ্যে ।
মেয়ে — অহেতুক কেন
মিথ্যে বললে ?
(আবেগী অশ্রু)
ছেলে — তোমার মনের
কথাটা জানার জন্য ।
মেয়ে — তুমি খুব খারাপ । খুব
খুব খুব খারাপ ।
ছেলে — তুমি খুব ভালো । খুব খুব
খুব
ভালো ।
মেয়ে — তুমি একটা পাগল ।
ছেলে — তুমি একটা পাগলি ।
মেয়ে — তুমি আমার পাগল ।
ছেলে — তুমি আমার পাগলি ।
Jyotirmoy Biswas: 1 year ago
একবার কালু আর লালু
দুজনে
এক দোকানে গেল…….
দোকানে সবাইকে কাজে ব্যাস্ত
দেখে কালু ৩টে চকলেট
পকেটে পুরে নিলো।
দোকানের
বাইরে এসে…..
কালুঃ দেখলি তো…..আমি ৩টে
চকলেট তুলে নিলাম,
অথচ
কেউ
কিছু বুঝতেই
পারলো না।
তুই কখনই
এটা করতে পারবি না।
এটা শুনে লালু খুব
রেগে গিয়ে
বললঃ চল, আমি এর
থেকে কিছু
বেশি তোকে দেখাচ্ছি।
তারা দুজনে আবার
দোকানে গেল,
এবং লালু
দোকানদারকে বললঃ আঙ্কেল,
আপনি কি একটা জাদু
দেখবেন?
দোকানদারঃ ঠিক
আছে দেখাও।
লালুঃ তাহলে এরজন্য
আমাকে ১টা চকলেট
দিন।
দোকানদার
লালুকে ১টা চকলেট
দিল।
লালু
সেটা খেয়ে নিয়ে আর
১টা চাইলো।
দোকানদার আবার
১টা দিল।
লালু
সেটা খেয়ে নিয়ে আবার
১টা
চকলেট চাইলো।
দোকানদার এবারও
তাকে চকলেট
দিতেই লালু
সেটাও খেয়ে ফেললো।
দোকানদারঃ আরে বাছা,
এতে
তোর জাদুটা কোথায় ??
লালুঃ উং…চুং…মুং. ….
এবার,
.
.
.
.
.
.
.
.
.
.
আমার বন্ধুর পকেট
চেক
করুণ,
আপনার ৩টে চকলেট
ফেরত
পেয়ে যাবেন….।।
Jyotirmoy Biswas: 1 year ago

সান্টা সিং এর গ্রামের অনেকেই কানাডা চলে যাওয়ায় তারও ইচ্ছা হলো ভারত ছেড়ে কানাডা চলে যাবে। এদিকে তার কাছে অতো টাকাও নেই যে এরোপ্লেনের টিকেট কেটে কানাডা যেতে পারবে।

অনেক ভেবেচিন্তে সান্টা শেষমেষ ভগবানের কাছে কাতর প্রার্থনা শুরু করলো। প্রার্থনায় সাড়া দিয়ে ভগবান এসে বললেন, "বলরে সান্টা, কি চাস তুই?"
সান্টা সিং জোক
সান্টা বললো, "প্রভু আমার বাড়ি থেকে কানাডা পর্যন্ত একটা রাস্তা বানিয়ে দাও, যাতে আমি ট্রাক চালিয়েই কানাডা চলে যেতে পারি।"
সবার জন্য জোক
ভগবান আঁৎকে উঠে বললেন, "অসম্ভব! তুই অন্য কিছু চা।"
এস এম এস জোক
একটু ভেবে নিয়ে সান্টা বললো, "ঠিক আছে। তাহলে আমাকে এমন একজন মেয়ের সাথে মিলিয়ে দাও যে শুধু আমাকেই ভালোবাসবে।"
সর্দার জোক
একটা হেঁচকি তুলে ভগবান জিজ্ঞেস করলেন, "বেটা সান্টা, রাস্তাটা সিঙ্গল লেন হবে না ডাবল লেন?"
Jyotirmoy Biswas: 1 year ago

আমাদের পচাদা সন্ধেবেলা পাড়ার আড্ডায় এসেই বললো, "একটা জিনিস বল দেখি, গুগল ছেলে না মেয়ে?"

আমরা এর-ওর দিকে মুখ চাওয়াচাওয়ি করছি দেখে পচাদা একটা করুণার হাসি হেসে বললো, "এতো সোজা জিনিসটাও বলতে পারলি না! গুগল হলো মেয়ে।"

এবার আমরা পচাদাকে ধরলাম, "যাতা বললেই হলো? গুগল মেয়ে হলো কিকরে?"

পচাদা খুবই তাচ্ছিল্যের সঙ্গে বললো, "দেখ বাওয়া, গুগল মেয়েই। কারন, তোকে কোন কথাই শেষ করতে দেবে না, আর তার আগেই পঞ্চাশটা সাজেশন দিয়ে বসবে! এবার বুঝলি?" বলেই কেটে পড়লো।
Jyotirmoy Biswas: 1 year ago

এক ইঞ্জিনিয়ারিং আর মেডিক্যাল কলেজের প্রিন্সিপাল, দুজনের মধ্যে তর্ক হচ্ছিলো যে কার ছাত্রদের সাহস বেশী।

মেডিকেল কলেজের প্রিন্সিপাল তাঁর ছাত্রদের ডেকে হাঙরে ভর্তি সমুদ্রের মধ্যে ঝাঁপ মারতে বললেন। ছাত্ররা কোনও প্রশ্ন না করে সোজা ঝাঁপ মেরে দিলো। প্রিন্সিপাল ঘুরে তাঁর বন্ধুকে বললেন, "দেখলে? আমার ছাত্রদের সাহস কতোখানি?"

ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের প্রিন্সিপালও তাঁর ছাত্রদের ডেকে হাঙরে ভর্তি সমুদ্রের মধ্যে ঝাঁপ মারতে বললেন। ছাত্ররা সমুদ্রের দিকে একবার তাকিয়ে বললো, "আপনি আমাদের নিজের মতন পাগল ভেবেছেন নাকি?" ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের প্রিন্সিপাল এবার তাঁর বন্ধুকে বললেন, "দেখলে? আমার ছাত্রদের সাহস!"